পরিপাক তন্ত্র কী এবং এর কাজ কী ?(What is the Digestive System and it's function?)

Digestive System :- Nutrition, Digestive Organ, Stomach, Dental Formula, Gland, Hcl, Liver, Human Body..environmental studies , evs mcq...etc

প্রাণী পুষ্টি তথা মানুষের পুষ্টি পদ্ধতি ও তার সঙ্গে জড়িত অঙ্গ , বিশেষ করে মানুষের পরিপাক তন্ত্র নিয়ে নিম্নে আলোচনা করা হল ..

ALIMENTARY CANEL,DIGESTIVE TRACT, HUMAN DIGESTIVE SYSTEM
DIGESTIVE SYSTEM
Digestive  System :- Nutrition, digestive system, stomach, dental formula, gland, hcl, liver, human body ,environmental studies ,evs mcq..etc.

1.হলোজোয়িক পুষ্টি(Holozoic nutrition) : - প্রাণী পুষ্টি কে হলোজোয়িক পুষ্টি বলে ।

2.হলোফাইটিক পুষ্টি(Holophytic nutrition) : – উদ্ভিদ পুষ্টিকে হলোফাইটিক পুষ্টি বলে ।

3.প্রাণী পুষ্টির পর্যায় গুলি হল : – খাদ্যগ্রহন , পরিপাক, শোষন,আত্তীকরন ও বহিঃস্করণ ।

4.মানবদেহে পুষ্টির জন্য সংশ্লিষ্ট পরিপাক নালী (Alimentary canel) :– মুখবিবর,গলবিল,গ্রাসনালী,পাকস্থলী ও ক্ষুদ্রান্ত্র ।

5.মানবদেহে পুষ্টির জন্য সংশ্লিষ্ট পরিপাক গ্রন্থি (Digestive Gland) :– লালাগ্রন্থি (প্যারোটিড,সাবম্যাণ্ডিবুলার,সাবলিঙ্গুয়াল ),গ্যাসটিক গ্রন্থি,অগ্ন্যাশয় ,আন্ত্রিক গ্রন্থি ও যকৃৎ ।

6.মানবদেহে চার প্রকারের দাঁত থাকে --- কৃন্তক (incisor) ,ছেদক (canine) , পুরপেষক (premolar) পেষক (molar)

7.মানুষের দন্ত সংকেত (Dental Formula) হল:I  2/2 C 1/1  PM 2/2   M 3/3


dental formula,human teeth,
Human Teeth

8.মানবদেহের সবচেয়ে কঠিনতম অংশ হল – দাঁতের এনামেল(Enamel)

9.মানবদেহের পৌষ্টিকনালীর (Alimentary canel) দৈর্ঘ্য :– 8 মিটার -10 মিটার

10.মানবদেহের গ্রাসনালীর খাদ্য গলাধকরণের সময় ক্রমসংকোচন (Peristalsis) দেখা যায় ।  
11.পাকস্থলীর (Stomach)অক্সিনটিক কোশ (Oxyntic cell) থেকে  HCL নিঃসৃত হয় ।

12.পাকস্থলীর পেপটিক কোশ (Peptic cells) থেকে পেপসিন নিঃসৃত হয় ।

13.পাকস্থলীতে কেবলমাত্র প্রোটিন ও ফ্যাট জাতীয় খাদ্য পরিপাক হয় ।

14.মানবদেহের ক্ষুদ্রান্ত্রের (Small intestine)দৈর্ঘ্য : – 6 মিটার -7 মিটার ।

15.শোষন তল বাড়ানোর জন্য ক্ষুদ্রান্ত্রের মধ্যে ভিল্লি (Villi) দেখা যায় ।

16.ভিলাসের কেন্দ্রে যে লসিকাবাহ থাকে তাকে ল্যাকটিয়াল (Lacteal) বা পয়ঃস্বীনি বলে ।

17.কুফারের কোশ (Kuffer cell) দেখা যায় যকৃতে ।

18.মানুষের বৃহদন্ত্রের সঙ্গে নিষ্ক্রিয় অঙ্গ অ্যাপেনডিক্স (Vermiform appendix) যুক্ত থাকে ।

19.গবলেট কোশ (Goblet cell) বৃহদন্ত্রে দেখা যায় ।

20.দেহের সবচেয়ে বড় পরিপাক গ্রন্থি হল যকৃৎ (Liver)

21.মানব অগ্ন্যাশয়ে (Pancreas) তিন ধরনের কোশ দেখা যায়,যথা –আলফা কোশ,বিটা কোশ,ডেল্টা কোশ ।

22.মানবদেহে যকৃতে ইউরিয়ার সংশ্লেষ ঘটে ।

23.মানব জিহ্বার উপরিতল অসংখ্য পীড়কার বা স্বাদকোরকের উপস্থিতির জন্য অমসৃন হয় ।
24.প্যানেথ কোশ (Paneth cell) থাকে আন্ত্রিক গ্রন্থিতে ।

25.মানব জিহ্বাই স্বাদকোরক (Taste bud) থাকে প্রায় :– 2000-8000 টি

26.লাইবারকুনের গ্রন্থি (Crypts of Liberkuhn) দেখা যায় ক্ষুদ্রান্ত্রে ।

27.ব্রুনারের গ্রন্থি (Brunner,s gland) দেখা যায় ডিওডিনামের অধঃশ্লেষ্মাস্তরে ।

28.যকৃৎ থেকে ক্ষরিত রসকেই পিত্ত (Bile) বলে ।

29.মানবদেহের লালাগ্রন্থিতে দুই প্রকার কোশ থাকে, যথা – সেরাস কোশ (Serous cell) ও মিউকাস কোশ (Mucous cell)

30.যকৃৎকে মানবদেহের সুসজ্জিত জৈব রসায়নগার বলা হয় ।



*************************************************************



No comments

Theme images by konradlew. Powered by Blogger.