আর্সেনিক ও আর্সেনিক দূষণ (What is Arsenic and Arsenic Pollution)?EVS MCQ - 2,

EVS MCQ -2 

What is Arsenic and Arsenic Pollution? Travel, Blood, Hemoglobin, Zoological Park,  Arsenic Pollution, London frog, Earthquick..etc

honey bee sucking necter from flower,nature,necter,
Bee with Flower
EVS MCQ -2:- What is Arsenic and Arsenic Pollution? Travel, Blood, Hemoglobin, Zoological Park, Arsenic Pollution, London frog, Earthquick..etc .  

1.রক্ত রসে হিমোগ্লবিন থাকে—
a.মানুষ   b. কেঁচো   c.আরশোলা   d.ব্যাঙ।

2. EPA এর পুরো নাম কী—?
a. Environment people act    b. Environment protection act  
c. Environment population act    d.কোনটিও না

3.পদ্মজা নাইডু হিমালয়ান জুলজিক্যাল পার্ক কোথায়—-?
a.সিমলা   b. নেপাল   c.নৈনীতাল   d. দাজিলিং

4.সালফারের প্রধান উৎস হল—?
a.পাহাড়   b. হ্রদ   c.আগ্নেয়গিরি   d.পচাপুকুর।



Kilauca,Volcano,Hawaii,Nature,SO2 gas.
Kilauca,Volcano,Hawaii

5.পরিবেশ শিক্ষার ক্ষেএে শিক্ষামূলক ভ্রমণ হল –?
a.দৃষ্টি শ্রুতি নির্ভর সহায়ক উপকরন।  
 b.শ্রুতি নির্ভর সহায়ক উপকরন।
c. .দৃষ্টি নির্ভর সহায়ক উপকরন।  
 d.সক্রিয়তা ভিওিক সহায়ক উপকরন।

6.পুননবীকরনযোগ্য শক্তি সম্পদ হল—?
a.বায়োমাস   b. কয়লা   c.পেট্রোলিয়াম   d.ইউরেনিয়াম। 


7.আত্মঘাতি থলি বলা হয়---?

a. রাইবোজম   b. গলগি বস্তু    c. নিউক্লাস   d. লাইসজোম।

8.এনটোমোলজি হল ------- সম্নধীয় বিজ্ঞান
a.পতঙ্গ    b. পক্ষী    c. মৌমাছি    d. মথ



Insect


9. হারগুলি পেশীর সঙ্গে কী দ্বারা  যুক্ত থাকে-----?
a. লিগামে্নট    b. কনডরা    c. রক্ত    d. কোনটিও নয়।

10. ‘TRAVEL’ কথাটি এসেছে ফরাসী শব্দ ---?
a.TRAVEL থেকে   b. TRAVAIL থেকে   c. TRAVELL থেকে   d. TRAVELE থেকে

11.সোনালী চতুর্ভুজ পরিকল্পনা কবে হয়----?
a.1999 সালের 2 nd january 
b.19992 সালের 2nd october 
c.1999 সালের 2 nd september
d.1999 সালের 2nd february 


12. জার্মানীর সড়কপথ কী নামে পরিচিত ---?

a.অটোনোমাস   b.অটোবানস   c. রোডরান  d. রোডবান


13. গ্রিক শব্দ সিসমোস কথার অর্থ কী -----?

a.সুনামি  b.ভূকম্পন  c.হ্যারিকেন  d.টর্নেডো 


14. কোন সালে লণ্ডন ফ্রগ এর প্রাদুর্ভাব হয় ---- ?

a.1950 সালে  b.1951 সালে  c.1952 সালে  d.1953 সালে ।

15. মানবদেহে আর্সেনিকের সহনসীমার মাত্রা ------?

a.0.04 mg/lit   b. 0.03 mg/lit   c. 0.05 mg/lit  d. 0.06 mg/lit


আর্সেনিকআর্সেনিক দূষণ (What is Arsenic and Arsenic Pollution?):-
আর্সেনিক মুলত একটি মৌলিক পদার্থ জলে স্বল্পমাত্রায় থেকে থাকে মাত্রাতিরিক্ত আর্সেনিক দ্বারা জল মৃত্তিকা জীত হওয়াকে আর্সেনিক দূষণ বলে যদিও লে আর্সেনিক দূষণের ফলাফল মারাত্মক আর্সেনিক এর রাসায়নিক সংকেত  - As ,পারমাণবিক সংখ্যা -৩৩ ।এটি একটি মৌলিক পদার্থ এর কোনো রং ,গন্ধ স্বাদ নেই আর্সেনিক ধাতুর সঙ্গে বিক্রিয়া করে বিভিন্ন বিষাক্ত ধাতব যৌগ তৈরি করে যেমন আর্সিন গ্যাস ,আর্সেন অক্সাইড আর্সিনাইটস ইত্যাদি উদ্ভিদ ,প্রাণী,মানুষ পরিবেশের ক্ষতি করে । বিভিন্ন কীটনাশক ও আগাছানাশক, যেমন- লেড আর্সেনেট, ক্যালশিয়াম আর্সেনেট, সোডিয়াম আর্সেনেট,প্যারিস গ্রিন ইত্যাদি যৌগ গুলি আর্সনিক দূষণ ঘটায় ।সোনা সিসা নিষ্কাশনের সময় ও কয়লার দহনে আর্সনিক পরিবেশে মুক্ত হয় ।
আবিষ্কারক-
ভারতবর্ষের পশ্চিমবঙ্গে দীপঙ্কর চক্রবর্তী প্রথমেই আর্সেনিক দূষণের ফলাফল সম্বন্ধে বিবিধ কথা বলেন বিষয়টিকে  আন্তর্জাতিক পর্যায়ে তুলে ধরেন 1988 খ্রিস্টাব্দে পশ্চিমবঙ্গে গবেষণা শুরু করেন ইদানিং পৃথিবীর বিভিন্ন দেশে যেমন -ভারত ,বাংলাদেশ রাশিয়া ,তাইওয়ান ,আর্জেন্টিনা ,চিলি ইত্যাদি

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে জলে আর্সেনিকের মাত্রা প্রতি লিটারে 0.05 মিলিগ্রাম থাকলে তা মানুষের জন্য ক্ষতিকর জলে আর্সেনিক দূষণের জন্য মাটির গভীরে অতিরিক্ত আর্সেনিকযুক্ত স্তরের প্রভাব আছে বলে বিজ্ঞানীরা মনে করছেন ।দেখা যায় যে অ্যালুমিনিয়াম লোহার পরিমাণ বেশি থাকলে মাটিতে আর্সেনিকের পরিমাণ বেশি হওয়ার সম্ভাবনা।
আর্সেনিক যে যে কাজে ব্যবহৃত হয়-
.পশুপালনের কাজে রোগ নিবারণকারী ওষুধ হিসাবে ,
.কাষ্ঠ শিল্প সংরক্ষক রাসায়নিক উপাদান হিসেবে,
৩.রং উৎপাদনে ,সাবান উৎপাদনে ,কাচের সামগ্রী উৎপাদনে ,ইলেকট্রনিক্স শিল্পে ,ব্যাটারি নির্মাণে ব্যবহৃত হয়
.ঔষধ শিল্পে আর্সনিক ব্যবহৃত হয় ।

মানুষের ওপর আর্সেনিক দূষণের প্রভাব (Influence of Arsenic Pollution in Human):-

১.আক্রান্ত শরীরেরউপর ছোট ছোট  কালো দাগ দেখা যায় অমসৃণ হয় কালো হয়।
২.জিহ্বা মুখে ঘা পর্যন্ত দেখা যায়।
৩. হাতের পায়ের তালুতে শক্ত গুটি দেখা যায় সাদা দাগ দেখা যায় ফুলে ওঠে চুলকানির এমন কি ক্যান্সার হতে পারে। হাতে পায়ে অসংখ্য নখের সাদা দাগ দেখা যায় একেমিজ রেখাবাঅল্ডরিচ মিজ লাইন (Mess Line; Aldrich Mess Line) বলে
৪. ফুসফুসে প্রদাহ ,এসমা ,ব্রংকাইটিস
৫.লিভার বড় হয়ে যায়
৬.মূত্রনালী মূত্রথলিতে রোগ দেখা যায়
৭.আমাশয় রক্ত বমি হয়

৮.পায়ের পাতায় যে কালো রঙের ঘা য়,তাকে ব্র্যাক ব্ল্যাক ফুট ডিজিজ (Black foot disease) বলে
৯.আর্সনিকোসিস (Arsenicosis)রোগ হয়,এর লক্ষণ গুলি হল -শারীরিক অবসাদ,দুর্বলতা,হাত পা ঝিন ঝিন করা,পেশীতে টান ধরা ইত্যাদি।

উদ্ভিদদেহে আর্সনিক দূষণের প্রভাব  (Influence of Arsenic Pollution in Plant):-

১.উদ্ভিদ কোশ ক্ষতিগ্রস্থ হয় ।
২.উদ্ভিদের বৃদ্ধি ব্যাহত হয় ।
৩.উদ্ভিদদেহে  মৌলবিপাক বাধা পায় ।

তথ্য সূত্র- 

  • পরিবেশ বই,ড অনীশ চট্টোপাধ্যায়
  • পরিবেশবিদ্যা বই, ড অলোকা দেবী
  • উচ্চতর জীববিদ্যা, সেন,মিদ্যা ,সাঁতরা।
  • বাংলা ব্লগ,মনুযুর-মুর্শিদ।
  • ছবি- pixabay.com




*************************

2 comments:

Theme images by konradlew. Powered by Blogger.